1. admin@chattalabarta24.com : admin :
রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ০৯:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিসর্জন যাত্রায় পাশে থেকে অসাম্প্রদায়িকতার অনন্য নজির স্থাপন করলেন কাউন্সিলর ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী মাদ্রাসা ও এতিমখানার শিশুদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ ও খাবার বিতরণ ওমর গনি এম ই এস বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উদযাপন ১২ নং সরাইপাড়া ওয়ার্ড ছাত্রলীগ যুবলীগের উদ্যোগে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী র জন্মদিন উদযাপন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এম এ মান্নানের মৃত্যুবার্ষিকীতে ওমরগণি এমইএস কলেজ ছাত্রলীগের শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন সাবেক কাউন্সিলর হিরন সহ ৪ জনকে পরিবেশ অধিদপ্তরের পৌনে আট লাখ টাকা জরিমানা চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের নির্দেশনায় ১৩ নং ওয়ার্ডে করোনা টিকার রেজিস্ট্রেশন বুথ উদ্বোধন কুটুমবাড়ি রেস্তোরাঁ চকবাজার শাখার ফেসবুক পেজ হ্যাক হয়েছে – কুটুমবাড়ি কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশের সঙ্গে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা চুক্তি দ্রুত বাস্তবায়ন চায় ভারত ১৩নং পাহাড়তলী ওয়ার্ডে তিনটি কেন্দ্রে কোভিড ১৯ টিকাদান কার্যক্রম পরিচালিত হবে

ভারতে করুণায় আক্রান্ত মৃতদেহ সৎকার করছে মুসলিম যুবকেরা-চট্রলাবার্তা24

চট্টলা বার্তা ২৪ ডেস্ক
  • আপডেট : বুধবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২১
  • ১৭২ বার পঠিত

করোনাই আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু এবং সংক্রমনের তালিকায় পুরোপুরি বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছে ভারত।

এমন বিপর্যস্ত অবস্থায় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির নজির গড়লেন বিহারের প্রদেশের একদল মুসলিম যুবক। করোনায় মারা গেছেন মনে করে এক নারীর মৃতদেহ ছুঁতে চায়নি তার পরিবারের সদস্যরা। শেষপর্যন্ত ওই মুসলিম যুবকরাই রীতি মেনে ওই হিন্দু নারীর শেষকৃত্য সম্পন্ন করেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ইতোমধ্যে ভাইরাল হয়েছে ঘটনাটি।

ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিন জানায়, বিহারের গয়া জেলার ইমামগঞ্জ পুলিশ স্টেশনের তেতারিয়া গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। সম্প্রতি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন প্রভাবতী দেবী নামে ৫৮ বছরের ওই নারী। তাকে তড়িঘড়ি একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। আরটি-পিসিআর টেস্টও করা হয়। কিন্তু সেই রিপোর্ট নেগেটিভ আসলেও পরবর্তীতে চিকিৎসা চলাকালীনই মৃত্যু হয় ওই নারীর। করোনাতেই মারা যান তিনি-এই ভয়ে ওই নারীর স্বামী এবং দুই ছেলে মৃতদেহ নিতে রাজি হননি। ফলে দীর্ঘক্ষণ গাড়িতেই পড়েছিল মৃতদেহটি।

শেষপর্যন্ত খবর পেয়ে ওই নারীর শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে এগিয়ে আসেন মো. রফিক, মো. শারিক, মো. কালামি, মো. বারিক, মো. লাদ্দানসহ এলাকারই বেশ কয়েকজন মুসলিম যুবক।

শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে সহযোগিতাকারী শারিক বলেন, করোনার কারণেই প্রভাবতী দেবীর মৃত্যু হয়েছে-এ আশঙ্কায় এবং ভয়ে তার স্বামী বা দুই ছেলে কেউই মৃতদেহ নিতে রাজি হননি।

ফলে দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত গাড়িতেই পড়েছিল তার মৃতদেহ। শেষপর্যন্ত আমরা খবর পেয়ে সকালে সেখানে যাই। আমরা কয়েকজন গাড়ি থেকে মৃতদেহটি নামাই। এরপর বাঁশ দিয়ে খাট তৈরি করে শবদেহটি নিয়ে শ্মশানের উদ্দেশে রওনা হই। এমন সম্প্রতির উদাহরণ সামনে আসার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অনেকেই ওই মুসলিম যুবকদের কাজের প্রশংসা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা